কাঁদলেন আগুন ও চলচ্চিত্রাঙ্গনের গুণীজনরা

বিনোদন প্রতিবেদক :

খ্যাতিমান অভিনেতা, পরিচালক, প্রযোজক, সংগীত পরিচালক, গায়ক ও গীতিকার খান আতাউর রহমান। সম্প্রতি এই নির্মাতাকে ‘রাজাকার’ বলে মন্তব্য করেন নাট্যজন ও মুক্তিযোদ্ধা নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু। এছাড়াও খান আতাউর রহমান নির্মিত ‘আবার তোরা মানুষ হ’ সিনেমা নিয়ে

নেতিবাচক মন্তব্য করেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া, চলচ্চিত্র পাড়াসহ বিভিন্ন মহলে চলছে আলোচনা। চলচ্চিত্রাঙ্গনের অনেকে প্রতিবাদও জানিয়েছেন। এ বিষয়ে আজ বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন ও আলোচনা সভার আয়োজন করেন চলচ্চিত্র পরিবার।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএফডিসি) জহির রায়হান কালার ল্যাব মিলনায়তনে প্রতিবাদ ও ঘৃণা প্রকাশ করেন চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা। তারা নিজেরা কেঁদে অন্যদেরও কাঁদিয়েছেন। প্রত্যেক বক্তাই নাট্যজন নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চুর মন্তব্যের প্রতিবাদ জানান। এ সময় খান আতাউর রহমানকে নিয়ে স্মৃতিচারণকরেন তারা। বক্তব্য শুনে কাঁদেন খান আতাপুত্র কণ্ঠশিল্পী আগুন।

নায়ক ফারুক বলেন, ‘কী কারণে, এই গুণী মানুষটাকে কবর থেকে তুলে বলা হচ্ছে তুই রাজাকার। এর পেছনে কারণ আছে। আমরা স্বাধীনতার পক্ষের মানুষ। এর বিচার চাই, বিচার হতে হবে। খান আতা সাহেবকে উনি রাজাকার বলেছেন। তিনি কোথায়, কোন বাড়িতে আগুন লাগিয়েছিলেন? কোন মা-বোনকে তুলে নিয়ে স্বৈরশাসকদের কাছে তুলে দিয়েছিলেন। এর প্রমাণ দিতে হবে। তা না-হলে আপনার বিচার হবে।জাতির কাছে আমরা এর বিচার চাই। সরকারের কাছে বিচার চাই। বর্তমান সরকারের কাছে বিচার চাই কারণ ১৯৭৩ সালে স্বাধীনতার পক্ষের এই সরকার ক্ষমতায় ছিল। এর প্রমাণ আপনাকে দিতে হবে। তা না হলে আপনি কোন অধিকারে এই মন্তব্য করলেন?’

আমজাদ হোসেন বলেন, ‘আমি কি বলব, আমার বাবাকে, আমার বড় ভাইকে একজন ছেলে গালি দিয়েছে। গত নয় মাসের যুদ্ধের সময় আমরা একটি গালি তৈরি করেছিলাম সেটি হলো ‘রাজাকার’। আমার বাবাকে কেউ গালি দিলে আমি কি চুপ থাকতে পারি? আমার শরীরে শক্তি না থাকতে পারে গোটা ইন্ডাস্ট্রির লোক তো আছেন। বিশ বছর আগে তিনি পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে চলে গিয়েছেন। তোমার তো কোনো ক্ষতি তিনি করেননি। তোমাদের কারো কোনো ক্ষতি তিনি করেননি। তুমি কেন এতদিন পর এমন কথা উচ্চারণকরলে?’

নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চুর এমন মন্তব্যের জন্য তাকে চলচ্চিত্রাঙ্গনে ঢোকার আগে চলচ্চিত্রের মানুষের কাছে, বাংলার মানুষের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে বলেও জানান আমজাদ।

মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন, ‘পাহাড়ের গায়ে একটি ঢিল ছুড়লে পাহাড়ের কিছু যায় আসে না। খান আতা সাহেবকে নিয়ে যে মন্তব্য করা হয়েছে তাতে কিছু যায় আসে না।’

আগুন বলেন, ‘‘এভাবে গুণী মানুষদের ছোট করতে নেই। আমার বাবাকে দেশের সবাই চেনেন ও জানেন। আজকে হঠাৎ তাকে ‘রাজাকার’ বলে দিলেই তাকে খাটো করা যাবে না। আমি যদি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের মানুষ হয়ে থাকি তবে অবশ্যই এই যুদ্ধে আমি জয়ী হব।’’

তিনি আরো বলেন, ‘‘প্রমাণ হবেই আমার বাবা ‘রাজাকার’ ছিলেন না। আমার সঙ্গে দেশবাসী রয়েছেন। সবার প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা। আমার বিশ্বাস বাচ্চু চাচা (নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু) ভুল বুঝতে পারবেন এবং বক্তব্য ফিরিয়ে নেবেন।’’

‘দুঃখের কিছু কথা বলতে চাই’ শিরোনামে এ সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন প্রযোজক জাহাঙ্গীর খান, নির্মাতা আজিজুর রহমান, নির্মাতা সাইদুর রহমান সাঈদ, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন, কণ্ঠশিল্পী আগুন, পরিচালক শাহীন সুমন, জাকির হোসেন রাজুসহ চলচ্চিত্রাঙ্গনেরে অনেক।

সংবাদ সম্মেলন শেষে খান আতাউর রহমান নির্মিত ‘আবার তোরা মানুষ হ’ সিনেমাটি প্রদর্শিত হয়।

আপনার মন্তব্য দিন

আপনার ই-মেইল এড্রেস প্রকাশ হবে না। Required fields are marked *