প্রবল বৃষ্টিতে বিপাকে রাজধানীবাসী

এসএম নিউজ ডেস্কঃ  ঘণ্টাখানেকের বৃষ্টিতে রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে দেখা দেয় জলাবদ্ধতা। সেখানে আজ সারাদিন বৃষ্টি।

হাসপাতাল, বাসাবাড়ি, দোকানপাট, সড়ক-সব পানিতে থই থই। কোথাও হাঁটু, আবার কোথাও কোমরসমান পানি।

সারা দিনের ঝুম বৃষ্টিতে রাজধানীর অনেক সড়কে জলাবদ্ধতা তৈরি করেছে। সৃষ্টি হয়েছে যানজটের। এই বৃষ্টি, জলাবদ্ধতা আর যানজটে আজ সোমবার নাকাল হয়েছে মানুষ। বিশেষ করে শিক্ষার্থী, অফিসফেরত ও খেটে খাওয়া মানুষ।

বিকের সাড়ে তিনটা। ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের মাটিকাটা ফুটওভার ব্রিজের নিচে রেইন কোট পড়ে দাঁড়িয়ে আছে এক শিশু। তার মা সড়কে ছাতা মাথায় গাড়ি থামানোর ব্যর্থ চেষ্টা করছেন। শিশুটি জানায়, তার নানা অসুস্থ, হাসপাতালে যেতে হবে। তারা ঝুম বৃষ্টিতে ভিজেই চলেছে কিন্তু কোনো গাড়ি নেই।

রাজধানীর নাজিমদ্দিন রোডে দেখা গেছে কোমরসমান পানিতে মানুষের ভোগান্তি। বাংলামোটর, পান্থপথ, ফার্মগেটে বাসের অপেক্ষায় অনেককে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। সঙ্গে ছিল তীব্র যানজট। গুলশান, উত্তরা, বিমানবন্দর সড়ক, মিরপুর ১০ নম্বর, কাজীপাড়া, কালশী এলাকা, রামপুরা, সোনারগাঁও সিগন্যালে দীর্ঘক্ষণ আটকে থাকতে হয় যানবাহনকে।

আবহাওয়ার এক সতর্ক বার্তায় বলা হয়েছে, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে আজ সকাল ৬টায় ভোলা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব স্থলভাগের দিকে অগ্রসর হতে পারে।
চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ (তিন) নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়ার বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই নিম্নচাপের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা সৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে এবং বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্র বন্দর সমূহের উপর দিয়ে দমকা/ ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

এছাড়া উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলার সমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

নিম্নচাপটির প্রভাবে উপকুলীয় জেলা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, নোয়াখালী, লক্ষীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদেও অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১ থেকে ২ ফুট অধিক উচ্চতার বায়ু তাড়িত জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।

এদিকে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে আরো জানানো হয়েছে, এই নিম্নাচাপের প্রভাবে ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ী দমকা/ঝড়োহাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসাথে খুলনা, বরিশাল, ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে। এছাড়া সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা ২ থেকে ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস হ্রাস পেতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস হ্রাস পেতে পারে।

আপনার মন্তব্য দিন

আপনার ই-মেইল এড্রেস প্রকাশ হবে না। Required fields are marked *