ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্কে প্রাপ্তি ক্ষুদ্র

নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক প্রাপ্তির পরিমাণ অপ্রাপ্তির তুলনায় খুব ক্ষুদ্র। প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছে, এই চুক্তি দুই দেশের জন্য ভালো ফল নিয়ে আসবে। কিন্তু সেটার পরিমাণ খুবই অনুল্লেখ্য।

আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদুর রহমান মান্না এসব কথা বলেছেন। নাগরিক ঐক্য ‘বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে সম্পাদিত চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক’ শীর্ষক এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদুর রহমান লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান। তিস্তা চুক্তি নিয়ে তিনি বলেন, তিস্তায় পানি নেই বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যে ঘোষণা, তা স্পষ্ট বার্তা দেয় যে এই চুক্তি শিগগিরই আলোর মুখ দেখছে না। তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা পাওয়া ছাড়া আর কোনো ধরনের বিকল্প প্রস্তাব কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। তিনি আরও বলেন, ‘গঙ্গা চুক্তির মতো একটা স্রেফ কাগজের চুক্তি হোক তিস্তা নিয়ে, আমরা সেটা চাই না। আমরা দৃঢ়ভাবে চাই, অভিন্ন ৫৪টি নদীর পানি বণ্টন নিয়ে একটি প্যাকেজের আওতায় আলোচনা করা হোক। সেটা অবশ্যই হতে হবে অববাহিকাভিত্তিক পানি ব্যবস্থাপনার ভিত্তিতে।’

প্রতিরক্ষা সমঝোতা স্মারক নিয়ে অস্পষ্টতা আছে মন্তব্য করে মাহমুদুর রহমান বলেন, তিনটি সমঝোতা স্মারকে দুই দেশের জাতীয় ডিফেন্স সার্ভিস অ্যান্ড স্টাফ কলেজ ও ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের মধ্যে কৌশলগত ও ব্যবহারিক শিক্ষা, জাতীয় নিরাপত্তার মতো ইস্যুতে সহযোগিতা বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। এটাও উদ্বেগের কারণ মন্তব্য করে তিনি বলেন, দেশের প্রতিরক্ষা কৌশল, জাতীয় নিরাপত্তা—এসব খুব স্পর্শকাতর বিষয়। দেশগুলো এটা রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তার মধ্যে রাখে। অন্য কোনো রাষ্ট্রের সঙ্গ বিনিময় করে না।

মাহমুদুর রহমান আরও বলেন, ‘অস্ত্র কেনার জন্য ঋণ দেওয়া হচ্ছে, সেটা কীভাবে ব্যয় করা হবে, সেটাও স্পষ্ট নয়। কত টাকার অস্ত্র কেনা হবে, কোন কোন অস্ত্র কেনা হবে, সেটা হওয়া উচিত আমাদের নিজেদের সিদ্ধান্তের ব্যাপার। কিন্তু আমরা দেখছি এখানে সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে।’

চুক্তি ও সমঝোতার ব্যাপারে অস্পষ্টতা আছে উল্লেখ করে মাহমুদুর রহমান বলেন, ‘ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল চুক্তি ২২টি। কিন্তু বাংলাদেশের পররাষ্ট্রসচিব জানান ৩৬টি চুক্তি। এটা নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের কোনো ধরনের ব্যাখ্যা নেই। তিনি আরও বলেন, প্রাপ্তি যদি এইটুকু হয়, আর তার বদলে আমরা দিলাম কতখানি।’

সংবাদ সম্মেলনে নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোমিনুল ইসলাম ও শহীদুল্লাহ কায়সার উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য দিন

আপনার ই-মেইল এড্রেস প্রকাশ হবে না। Required fields are marked *