যতক্ষণ ৫৭ ধারা আছে ততক্ষণ এ ধারায় মামলা : আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, যতক্ষণ পর্যন্ত তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারাটা আছে, ততক্ষণ পর্যন্ত যদি এই ধারায় কোনো অপরাধ হয়, তাহলে মামলা হবে। তবে মামলা হওয়াটাই শেষ নয়। মামলা হওয়ার পরে এই ধারায় চার্জশিট দেয়ার আগে ইনভেস্টিগেশন একটা হয়। সেই ইনভেস্টিগেশন অত্যন্ত সুষ্ঠু হবে এ ব্যাপারে তিনি আশ্বস্ত করেন।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া চূড়ান্তে আজ রোববার সচিবালয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় এক সভার পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী একথা বলেন।

সভায় ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক উপস্থিত ছিলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, তথ্য-প্রযুক্তি আইন থেকে আলোচিত ৫৭ ধারা সরিয়ে তা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে রাখা হবে কি-না আগামী আগস্ট মাসে তা জানা যাবে।

তিনি বলেন, সভায় ‘ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট’ নিয়ে যে আলোচনা হয়েছে, সেখানে ‘অনেক কিছুই’ এসেছে। তবে সেসব বিষয়ে এই সভায় চূড়ান্ত নিদ্ধান্ত হয়নি।

আইনমন্ত্রী বলেন, আলোচনায় যেসব কথাবার্তা এসেছে, তার একটা রূপরেখা করে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টের মধ্যে এনে আমরা আগামী আগস্ট মাসে এটার একটা ড্রাফট নিয়ে আবার মিটিংয়ে বসব। সেই মিটিংয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব। সেখানে ৫৭ ধারা সম্পর্কে আমাদের সিদ্ধান্ত আপনারা পাবেন।

৫৭ ধারায় যেসব মামলা হচ্ছে সেগুলো নিয়ে সভায় কোনো পর্যবেক্ষণে এসেছেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে বৈঠকে কোনো কথা হয়নি।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত ৫৭ ধারায় মামলা হতেই থাকবে কি-না এমন প্রশ্নে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘দ্যাখেন, আমি আপনাদের একটি কথা বলি ৫৭ ধারা যদি আমরা বাতিলও করে দেই, তাহলে এই যে মামলা যেগুলো হয়েছে সে ব্যাপারে কিন্তু একটি সিদ্ধান্ত যখন ওই আইন করব তখন নিতে হবে।’

৫৭ ধারায় বেশিরভাগ মামলা সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে হচ্ছে- এমন অভিযোগের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘এ ব্যাপারে আপনারা যদি কনসার্ন থাকেন, আমি তা নোট করব এবং তা তদন্তকারী কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠিয়ে দিচ্ছি তারা যেন বিবেচনা করে ইনভেস্টিগেশনটা চালায়’।

আপনার মন্তব্য দিন

আপনার ই-মেইল এড্রেস প্রকাশ হবে না। Required fields are marked *