শুটিংস্পটেই হেনস্তার শিকার অভিনেত্রী!

বিনোদন প্রতিবেদকঃ দক্ষিণ কোরিয়ার শীর্ষ চলচ্চিত্র পরিচালক কিম কি-দুক সিনেমার শুটিং চলাকালে এক অভিনেত্রীর ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি তদন্ত শুরু করেছেন কৌঁসুলিরা।

এক মুখপাত্র একথা জানিয়েছেন।

পরিচালক কিম তার কর্ম জীবনে একাধিক পুরস্কার অর্জন করেন। তিনি ২০১২ সালে ভেনিস ফিল্ম ফেস্টিভালে শ্রেষ্ট চলচ্চিত্রের জন্য গোল্ডেন লায়ন পুরস্কার পান। ‘পিয়েতা’ চলচ্চিত্রের জন্য তিনি এ পুরস্কার পান।

একই বছর তিনি ‘সামারিতান গার্ল’ চলচ্চিত্রের জন্য বার্লিনের সিলভার বেয়ার পুরস্কার জিতে নেন।

দক্ষিণ কোরিয়ার বার্তা সংস্থা ইয়োনহাপ জানায়, এক অভিনেত্রী কিমের বিরুদ্ধে তাকে থাপ্পড় মারার অভিযোগ দায়ের করেন।

প্রসিকিউটরদের কাছে দায়ের করা অভিযোগ পত্রে বলা হয়, ২০১৩ সালে ‘মোয়িবিয়াস’ চলচ্চিত্রের শুটিং চলাকালে সেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পরিচালক তাকে নগ্ন দৃশ্যে অভিনয়ে বাধ্য করেন।

এ ঘটনার পরপরই তিনি ‘মোবিয়াস’ নামক ওই চলচ্চিত্রে অভিনয় করা থেকে বিরত থাকেন। ফলে তার জায়গায় আরেক অভিনেত্রীকে নেয়া হয়।

কোরিয়ান চলচ্চিত্রশিল্পী ইউনিয়নের কর্মকর্তা আ বুং হো জানান, ওই অভিনেত্রী পরিচালক কিমের বিরুদ্ধে এই অভিযোগপত্র দিয়েছেন। এবং এই ঘটনায় দীর্ঘ দিন ‘মানসিক যন্ত্রণা’য় ভোগার কারণে সম্প্রতি ইউনিয়নের কাচে এই অভিযোগ করেন।

সিউল সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্ট প্রসিকিউটর দফতরের মুখপাত্র এএফপিকে জানান, পরিচালক কিম কি-দুকের বিরুদ্ধে একটি ফৌজদারি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এবং এ মামলার ব্যাপারে তদন্ত শুরু হয়েছে।

এদিকে কিম ও তার প্রয়োজনা প্রতিষ্ঠান এই অভিযোগের ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি।

তবে একটি পত্রিকা দাবি করা হয়েছে, কিম তাদের কাছে এ ঘটনা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, ওই অভিনেত্রীকে দৃশ্য বুঝানোর সময় থাপ্পড় দিয়েছিলেন তবে তাকে নগ্ন দৃশ্যে অভিনয়ে বাধ্য করেননি তিনি।

আপনার মন্তব্য দিন

আপনার ই-মেইল এড্রেস প্রকাশ হবে না। Required fields are marked *