২৬ বছর অপরাজিত থাকার রেকর্ড টিকবে পাকিস্তানের?

সেই সিরিজের সর্বোচ্চ রান এসেছিল ডেসমন্ড হেইন্সের ব্যাটে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান করা ব্রায়ান লারা মাত্রই চারটি ওয়ানডে খেলে এসেছিলেন পাকিস্তানে। ম্যালকম মার্শাল তখনো ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের অন্যতম বোলিং ভরসা। ইনজামাম-উল হক নামের এক তরুণের অভিষেক হলো মাত্রই। সেই ১৯৯১ সালের সিরিজটা আজও মনে রাখতে হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। এরপর ২৬ বছর ধরে যে পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জিততে পারেনি তারা!

এরপর এ নিয়ে দশম দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলছে এই দুই দল। ১৯৯৩ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ফিরতি সিরিজটা ২-২ ড্র হয়েছিল। তারপর থেকে টানা আটটি সিরিজ জিতেছে পাকিস্তান। এই ধাঁধা থেকে কবে মুক্তি মিলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের? হয়তো আজই!
সিরিজের প্রথম ম্যাচে অবিশ্বাস্যভাবে হেরে গিয়েছিল পাকিস্তান। দ্বিতীয় ম্যাচটি জিতে অবশ্য সিরিজে সমতা ফিরিয়েছে তারা। আজ গায়ানায় তাই সিরিজের শেষ ম্যাচটি হয়ে উঠেছে ফাইনাল। যে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায়।
পাকিস্তান যতটা অনায়াস হবে ভেবেছিল, তা কিন্তু হয়নি। দ্বিতীয় ম্যাচটা যদিও তারা সহজভাবে জিতেছে। তবে অস্বস্তির একটা চোরাস্রোত তো আছেই। এই সিরিজটা মূলত ছিল পরের বিশ্বকাপে জায়গা করে নেওয়ার একটা ধাপ। পাকিস্তানকে আপাতত স্বস্তি দেবে এই তথ্য, সিরিজে ২-১-এ হেরে গেলেও র‍্যাঙ্কিংয়ে আটেই থাকবে তারা। কিন্তু ২৬ বছর ধরে অপরাজিত থাকার রেকর্ডটি কেন হাতছাড়া করতে চাইবে পাকিস্তান?
তবে ক্যারিবীয়দের মনে হচ্ছে উজ্জীবিত। গত ম্যাচের ভুলটা শুধরে নিতে চায় তারা। প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের ৩০৮ অনায়াসে পেরিয়ে গেলেও পরের ম্যাচে ২৮৩ তাড়া করতে গিয়ে ২০৮ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল স্বাগতিকেরা। অথচ দলের ৯ জন ব্যাটসম্যান দুই অঙ্ক ছুঁয়েছিলেন। উইকেটে থিতু হয়েও বড় ইনিংস গড়তে না পারাতেই সর্বনাশ হয়েছে। সর্বনাশ হয়েছে শট নির্বাচনে। ঝুঁকি নেওয়ার সিদ্ধান্ত ঠিকভাবে নিতে না পারায়। এই ভুলগুলোর পুনরাবৃত্তি না হলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের আশা অবশ্যই আছে।
ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ভরসা দিতে পারে এই তথ্যও: সিরিজের ফলনির্ধারণী ম্যাচের চাপ হয়তো নিতে পারছে না পাকিস্তান। ২০০৩ সাল থেকে সিরিজের ফলনির্ধারণী ১৪ ম্যাচের মাত্র দুটি জিতেছে তারা। সেই দুটিই আবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। চাপে ফেললে গড়বড় করে ফেলে এই পাকিস্তান।
দেখা যাক, আজ কী হয়!

আপনার মন্তব্য দিন

আপনার ই-মেইল এড্রেস প্রকাশ হবে না। Required fields are marked *